ব্যাটিংয়ে নেমেই ঝড় তুলেছেন স্মিথ,খেলাটি সরাসরি দেখুন এখানে Live

বিপিএল লাইভ টিভি

সিলেটের ইনিংসের ১৭ তম ওভার পর্যন্ত তাদের দলীয় রান ছিলো ৫ উইকেটে মাত্র ১০১। তবে মোহাম্মদ শহীদের করা ১৮তম ওভারের প্রথম দুই বলে এক ছয় এবং এক চারের সাহায্যে দলকে কিছুটা এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন ক্যারিবিয়ান উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নিকোলাস পুরান।

কিন্তু ইনিংসের শেষ পর্যন্ত টিকতে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। শহীদের তৃতীয় বলে মাত্র ২৬ বলে ৪১ রান করে লং অফ অঞ্চলে আবু হায়দার রনির হাতে ধরা পড়েন এই উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান।

আর পুরানের ফেরার পর পরই দ্রুত আরও দুই উইকেট হারিয়ে অলআউটের শঙ্কায় পড়ে সিলেট। তবে শেষ পর্যন্ত সন্দীপ লামিচানে এবং আল-আমিন হোসেনের ব্যাটে পুরো ওভার খেলতে সক্ষম হয় তারা এবং ৮ উইকেটে ১২৭ রান নিয়ে দলীয় ইনিংস শেষ করে।

এই ম্যাচের শুরু থেকেই সিলেটের ব্যাটসম্যানদের চাপের মুখে রেখেছিলেন কুমিল্লার বোলাররা। দলীয় ৫৬ রানের মাথাতেই ৫টি উইকেট খুইয়ে বিপদে পড়েছিলো তারা। পাদপ্রদীপের আলোয় থাকায় সিলেট অধিনায়ক ওয়ার্নার মাত্র ১৪ রান করে আউট হয়েছেন তৌহিদ হৃদয়ের সাথে ভুল বোঝাবুঝিতে।

ব্যাটিং করতে নেমে একটি বিশাল ছক্কা হাঁকানো ছাড়া আর কিছু করতে পারেননি সাব্বির রহমানও। তবে সবথেকে ব্যতিক্রম ছিলেন উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান পুরান। অলোক কাপালির সাথে ৫৫ রানের জুটি গড়ে দলকে শতকের কোটা পার করানোর মূল ভূমিকা পালন করেছেন তিনি। ২০ বলে ১৯ রান করে তাঁকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছিলেন কাপালি এছাড়াও তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতে নামা আফিফ হোসেন ধ্রুবর ব্যাট থেকেও এসেছে ১৯ রান।

কুমিল্লার বোলারদের মধ্যে সবথেকে সফল ছিলেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোহাম্মদ শহীদ এবং মেহেদি হাসান। এই তিন বোলারই নিয়েছেন ২টি করে উইকেট। এছাড়াও শহীদ আফ্রিদি শিকার করেছেন ১টি উইকেট।

সিলেট সিক্সার্স একাদশঃ

ডেভিড ওয়ার্নার (অধিনায়ক), মোহাম্মদ ইরফান, নিকোলাস পুরান, সন্দীপ লামিচানে, অলোক কাপালি, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, আল-আমিন হোসেন, তাসকিন আহমেদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, তৌহিদ হৃদয়।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স একাদশঃ

স্টিভ স্মিথ (অধিনায়ক), আনামুল হক বিজয়, ইমরুল কায়েস, তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, আবু হায়দার রনি, মোহাম্মদ শহীদ, মেহেদি হাসান, এভিন লুইস, শোয়েব মালিক, শহীদ আফ্রিদি।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সঃ ২৬/২ (৫ ওভার ) ( তামিম ১৩*, স্মিথ ৩* ,ইমরুল কায়েস ০, এভিন লুইস ৫ )

সিলেট সিক্সার্সঃ ১২৭/৮ (২০ ওভার) (পুরান- ৪১, কাপালি-১৯) (সাইফুদ্দিন- ২/১৩, শহীদ- ২/২২)

টসঃ সিলেট (বোলিং)