চেলসি ছেড়ে ফ্রান্সে পাড়ি দিলেন ফ্যাব্রিগাস

ফুটবল

কানাঘুষো শোনা যাচ্ছিল কিছুদিন ধরেই। সম্প্রতি নিশ্চিত হয়ে গেল ফ্যাব্রিগাসের চেলসি ছেড়ে ফ্রান্সে পাড়ি দেওয়ার বিষয়টি। নতুন বছরের ট্রান্সফার উইন্ডোতে ব্লুজ জার্সি ছেড়ে ফরাসি ক্লাব মোনাকোতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডার। তার আগে শনিবার চেলসির জার্সি গায়ে খেলে ফেললেন শেষ ম্যাচটি। সেইসঙ্গে ইংলিশ ফুটবলের সঙ্গে ছেদ হল তার ১২ বছরের সম্পর্ক।

স্বভাবতই নটিংহ্যাম ফরেস্টের বিরুদ্ধে মাঠ ছাড়ার সময় চোখের পানি ধরে রাখতে পারলেন না আপাত নিরীহ স্বভাবের এই ফুটবলার। আর বিদায়বেলায় স্ট্যামফোর্ড ব্রিজের গ্যালারি মুখরিত হল ‘ফ্যাব্রিগাস’ ধ্বনিতে। প্রিয় সতীর্থ ক্লাব ছাড়ার ঘটনায় আবেগঘন দাভিদ লুইজ জানান, ‘ক্লাব ওকে ভীষণ মিস করবে।’

২০১৪ সালে ঘরের ক্লাব বার্সেলোনা থেকে ৩৩ মিলিয়ন ইউরোয় লন্ডনের এই ক্লাবের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন বছর একত্রিশের এই ফুটবলার। এরপর ব্লুজ জার্সিতে দু’টি প্রিমিয়র লিগ খেতাবসহ চারটি মেজর ট্রফি জিতেছেন এই স্প্যানিশ মিড ফিল্ডাড়। মাঝের তিনবছর কাতালান ক্লাবের হয়ে খেললেও কয়ারিয়ারের শুরু থেকেই ইংল্যান্ড ফুটবলের সঙ্গে তার ছিল নাড়ির টান। তাই সতীর্থের বিদায়বেলায় সতীর্থ হ্যাজার্ড জানান, ‘চেলসিতে নিজেকে উজাড় করে দিয়েছে সেস।’
তবে বিদায়ী ম্যাচটা সুখের হল না দেশের হয়ে বিশ্বজয়ী এই ফুটবলারের জন্য। রূপকথার মতই হতে পারত চেলসিতে স্প্যানিশ এই ফুটবলারের অন্তিম ম্যাচ। কিন্তু পেনাল্টি হাতছাড়া করে সেই সুযোগ নিজেই নষ্ট করেন তিনি। যদিও তাতে ঘরের মাঠে আটকায়নি চেলসির জয়। আলভেরো মোরাতার জোড়া গোলে নটিংহ্যাম ফরেস্টকে হারিয়ে এফ এ কাপের চতুর্থ রাউন্ডে ওঠা নিশ্চিত করে মৌরিজিও সারির ছেলেরা।

তবে সেই জয় ছাপিয়ে বরং ম্যাচ শেষে ফ্যাব্রিগাসের বিদায়েই এদিন বেশি ভারাক্রান্ত ছিল ব্লুজদের গ্যালারি। ফ্র্যাব্রিগাসের বিদায় প্রসঙ্গে এক সংবাদমাধ্যমকে ডিফেন্ডার দাভিদ লুইজ বলেন, ‘ইংল্যান্ডের মাটিতে বহুবছর ধরে খেলা অন্যতম সেরা ফুটবলার সেস। শুধু ওর জন্য নয়, প্রত্যেকের কাছেই এটা খুব কঠিন সময়। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়ায় সতীর্থকে নতুন জার্নির জন্য শুভেচ্ছাও জানান ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার।