বিএনপি জোট নেতারা বৈঠকে বসছে

রাজনীতি

২০ দলীয় জোটের চলমান টানাপড়েন আর ভাঙনের মুখে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জোট নেতারা।অভিমান ভাঙাতেশরিকদের মান-অভিমান ও ক্ষোভ প্রশমনে সোমবার বিকাল ৪টায় রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।জোট থেকে সম্প্রতি বেরিয়ে যাওয়া বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিভ রহমান পার্থকেও বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তবে বৈঠকে তার যোগদানের বিষয়টি এখনও নিশ্চিত নয়।বৈঠকের বিষয়টি যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন এনপিপির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফরিদুজ্জামান ফরহাদ। তিনি বলেন, বৈঠকের পর ইফতারও করানো হবে। বৈঠকে জোট থেকে সম্প্রতি বেরিয়ে যাওয়া বিজেপির সভাপতি ব্যারিস্টার আন্দালিভ রহমান পার্থকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।বিএনপির নির্বাচিত ৫ এমপির শপথকে কেন্দ্র করে ২০ দলীয় জোট থেকে আন্দালিভ রহমান পার্থর বেরিয়ে যাওয়া ও অন্য শরিক দলগুলোর নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার মধ্যে জোটের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।বিএনপি সূত্র জানায়, অন্য শরিকদের পাশাপাশি শনিবার রাতে গুলশান কার্যালয় থেকে আন্দালিভ রহমান পার্থকে ফোন করে বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তবে পার্থ বৈঠকে যোগ না দেয়ার কথা জানিয়েছেন।

পার্থ যাতে বৈঠকে আসেন সেজন্য বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান তার সঙ্গে কথা বলেছেন।সূত্র আরও জানায়, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্কাইপির মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে। সংসদে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে বিস্তারিত শরিকদের অবহিত করা হতে পারে। একই সঙ্গে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হবে।জানতে চাইলে এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম বলেন, নির্বাচন পরবর্তী রাজনীতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক থাকা না থাকাসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হতে পারে। এসব বিষয়ে একটি সুরাহা হবে বলে আশা করছি।তিনি বলেন, ভবিষ্যৎ রাজনীতিতে ২০ দলের কৌশল কী হবে, জোট থেকে কেউ কেউ বেরিয়ে গেছেন, কেউবা আলটিমেটাম দিয়েছেন- এসব বিষয়ে একটি সমাধানে আসা উচিত। না হয় ভবিষ্যতে জটিলতা আরও বাড়বে।