চিতার মুখ থেকে সন্তানকে উদ্ধার করলেন মা

আন্তর্জাতিক

অন্যান্য দিনের মতোই ঘরের বাইরে খোলা জায়গায় দেড় বছরের ছেলেকে নিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন দীপালি আর তার স্বামী দীলিপ। গভীর রাতে হঠাৎ দীপালির ঘুম ভেঙে যায় চিতা বাঘের গর্জন শুনে। দীপালি ভাবছিলেন সম্ভবত কোনও স্বপ্ন দেখছেন। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যে তিনি বুঝতে পারেন তার সন্তানকে মুখে নিয়ে চলে যাচ্ছে একটি চিতা বাঘ।

সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পুনে রাজ্যের জুন্নার তালুকায়। জানা গেছে, চিতাবাঘ সন্তানকে নিয়ে যাচ্ছে এমন দৃশ্য দেখে চুপ থাকতে পারেননি দীপালি। হাতে কোনও অস্ত্র না থাকলেও তিনি ঝাঁপিয়ে পড়েন চিতার উপর।হাত দিয়েই ঘুষি মারতে থাকেন সেটাকে। আকস্মিক হামলায় চিতাটাও কিছুটা থতমত খেয়ে যায়। মুখ থেকে ফেলে দেয় শিশুটিকে। আক্রমণ করতে যায় দীপালিকে। এ অবস্থায় জোরে জোরে বিপদ সংকেত বাজাতে থাকেন তিনি। অবশেষে সংকেতের শব্দ শুনে পালিয়ে যায় চিতাবাঘটি। জানা গেছে, দীপিকা ও তার স্বামী আখচাষীর কাজ করেন।ওই এলাকার অন্যান্য শ্রমিকের মতো তারাও সেদিন কুঁড়েঘরের বাইরে খোলা জায়গায় ঘুমাচ্ছিলেন। কিন্তু রাতেই হামলা চালায় চিতাটি।

আহত শিশুটিকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।আপাতত সে বিপদমুক্ত বলেই জানা গেছে। স্থানীয় বন বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, ওই এলাকার অনেক আখচাষীই নদীর তীরে অস্থায়ী কুঁড়েঘর তৈরি করে থাকেন।তিনি আরও বলেন, এলাকাটার চারপাশে বন থাকায় গ্রামবাসীদের ঘরেই ঘুমানোর পরামর্শ দিয়েছেন তারা। কিন্তু সেটা না শুয়ে তারা প্রায়ই খোলা জায়গায় ঘুমান।

উল্লেখ্য, জুন্নার তালুকায় এই বছরের জানুয়ারিতেই ৫ বছরের একটি শিশু চিতার আক্রমণে মারা যায়।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া