দলের নির্বাচিতদের সাবধান বার্তা গয়েশ্বরের

রাজনীতি

দলের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের সাবধান করে দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়নি মন্তব্য করে তিনি বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার আদর্শের কর্মী যারাই মনে করে তারা জয়লাভ করেছে। আমি বিশ্বাস করি তারা সংসদে যাওয়া তো দূরের কথা, তার আশেপাশ দিয়েও কেউ হাঁটবে না। কারণ তারা সংসদের আশপাশ দিয়ে হাঁটলে বাংলাদেশের মানুষ তাদের ক্ষমা করবে না। দলীয় নেতাকর্মীর কথাতো বাদই দিলাম।’

রবিবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবী দল আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘৩০০ আসনে কেউ জয়লাভ করে নাই, সুতরাং ৩০০ আসনে কেউ পরাজিতও হয় নাই। কারণ জনগণ নির্বাচনে ভোট দেয় নাই। নির্বাচনে জয়-পরাজয় নির্ধারণ করে জনগণ। সুতরাং আমরা পরাজিত হয়নি। যারা আছে তারা নির্বাচন কমিশন এবং প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের মাধ্যমে ভোট চুরি করে আছে। এই চুরির ভোটের ফলাফল জনগণ মানতে পারে না।’

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘নেত্রী জেলে থাকবে আর আমরা সংসদে গিয়ে মজা নেব, শেখ হাসিনাকে সন্তুষ্ট করব। এমন ব্যক্তি বিএনপিতে আছে কিনা আমার জানা নেই। যদি থাকে যথা সময়ে যথাযথ উত্তর তাদের জন্য অপেক্ষা করছে।’

তিনি বলেন, ‘আজকের আন্দোলন শুধু খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য নয়, বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের মুক্তির জন্য। গণতন্ত্রিক শক্তিগুলো ঐক্যবদ্ধ হলে এই সরকার হটানো সম্ভব এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার সম্ভব।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘সরকারকে না হটিয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার সম্ভব নয় এবং আমাদের নেত্রীকেও মুক্ত করা সম্ভব নয়।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই জানি বেগম খালেদা জিয়া আপসহীন নেত্রী। তিনি আপস করতে জানেন না। নেত্রী জেলে থাকবে আর আমরা বাইরে থাকবো জেলে যাওয়ার ভয়ে আন্দোলন করতে পারব না। আমাদের এই সিদ্ধান্ত পরিহার করতে হবে।’

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, আব্দুল আউয়াল মিন্টু,স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আক্তারুজ্জামান বাচ্চু,মৎসজীবী দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক সেলিম মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।