উন্নত প্রযুক্তিতে নতুন রূপে সেজেছে ‘হোম অব ক্রিকেট’

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ আগামী ১১ নভেম্বর মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হবে। আসন্ন এই টেস্ট ঘিরে সব ধরণের কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে বিসিবি। তবে ম্যাচের ভেন্যু মিরপুর শেরে বাংলা সেজেছে ভিন্ন আঙ্গিকে। দূর থেকে মাঠটি দেখে মনে হবে ইউরোপের কোন ফুটবল মাঠ। সেই আদলেই প্রথমবারের মতো তৈরি করা হয়েছে মিরপুরের এই হোম অব ক্রিকেটকে।

অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের বিশেষজ্ঞদের যৌথ পরিশ্রম ও বিসিবির ব্যপক অর্থের সংমিশ্রণেই শেরে বাংলা সেজেছে নতুন রূপে। গত বছর পুরো মাঠ সংস্কারে নামে বিসিবি। আধুনিকায়নে যোগ হয়েছে মাঠের নিচের অংশে পানি নিষ্কাশনের উন্নত প্রযুক্তি এবং উপরের অংশে চোখ ধাঁধানো আউটফিল্ড।

মাঠের এই নতুন রূপ নিয়ে বিসিবি`র প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন জানান, অস্ট্রেলিয়ার বিশেষজ্ঞ ও বুয়েটের পরামর্শ নিয়ে আমরা গত বছর মাঠের সয়েল ড্রেসিং করেছি। আমাদের গ্রাউন্ডস স্টাফরা কঠোর পরিশ্রম করে মাঠের রূপ পরিবর্তন করেছে। মাঠের বড় এই পরিবর্তনে কিউরেটরের ভূমিকাও ছিল বেশ। ২০১৭ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় ইংল্যান্ডের বেশ কয়েকটি ভেন্যু এমন ভাবে গড়ে তোলা হয়েছিলো। তারই আদলে রূপ মিরপুরের।

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে দ্বিতীয় টেস্ট দিয়ে প্রায় ৯ মাস পর সাদা পোশাকের ম্যাচে ফিরছে শেরে বাংলা স্টেডিয়াম। সিলেটে প্রথম টেস্টে সফরকারী জিম্বাবুয়ের কাছে অপ্রত্যাশিত ভাবে ১৫১ রানের বড় ব্যবধানে হেরে সিরিজে ১-০ তে পিছিয়ে আছে টাইগাররা। সিরিজ বাঁচাতে মিরপুরে তাঁদের জয়ের বিকল্প নেই। ২০০৭ সালে মিরপুরে টেস্ট অভিষেকের পর গত ১১ বছরে মোট ১৭টি টেস্টে খেলে ১১ টি ম্যাচেই হেরেছে বাংলাদেশ। বাকি ছয় ম্যাচের সমান ৩ জয় ও ৩ ম্যাচ ড্র করেছিল স্বাগতিকরা। এ মাঠেই ২০১৬ সালে ইংল্যান্ড ও ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমবারের মতো টেস্টে হারিয়েছিল টাইগাররা। তাই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে সহজেই জয়ের ধারায় ফিরবে বাংলাদেশ এমন প্রত্যাশাই ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের।