সরকার সংবিধান ও জনগণকে ভয় পায়: নজরুল

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, সরকার সংবিধান ও জনগণকে ভয় পায়। বর্তমান সংবিধান অনুযায়ীই নির্বাচন সম্ভব, সেটিও তারা করতে চায় না। কারণ সুষ্ঠু নির্বাচন দিলে সরকারের এমপিরা নিজ নিজ এলাকায় যেতে পারবেন না।

তাদের অপকর্মের কারণে জনগণ তাদের প্রতিরোধ করবে। তারা পরাজিত হবেন। এ কারণেই তারা সংসদ না ভেঙে নির্বাচনের কথা ভাবছেন।

তিনি বলেন,সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ভীতিতে ভুগছে বিএনপি নেত্রীর জনপ্রিয়তার কারণে জামিনযোগ্য মামলায় তাকে আটকে রাখা হচ্ছে। হাইকোর্ট জামিন দিলেও সরকারের নির্দেশে নিম্ন আদালতে জামিন আটকে যায়।

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স রুমে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) আয়োজিত এক আলোচনায় নজরুল ইসলাম এ কথা বলেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিশেষ কাউন্সিল উপলক্ষে এ আলোচনার আয়োজন করা হয়।

তিনি আরো বলেন, আমরা যখন বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে বলি আপনারা পদত্যাগ করেন, আপনাদের প্রতি জনগণের আস্থা নেই।

নির্বাচন কমিশন আমাদের বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি জনগণের আস্থা নেই। সরকারকে এই ইসি পুনর্গঠনের কথা বললেও তারা তা মানেনি।

‘খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা দেখে সরকার ইভিএমকে সামনে আনলো। তারা রাষ্ট্রপতিকে দিয়ে অধ্যাদেশ জারি করেছে। অথচ আরপিওতে কোনো ইভিএমের কথা ছিলো না। বিশ্বের অনেক দেশ ইভিএম থেকে বেরিয়ে আসছে। ইভিএমে একটিতে ভোট দিলে অন্যটিতে গণনা হবে।’
জাগপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জাগপার সিনিয়র সহ-সভাপতি রাশেদ প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ।